১১ই মাঘ, ১৪২৭ | সোমবার | ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১

বিস্তারিত সংবাদ

পূজায় আসছে ঋতুপর্ণার ‘মায়াকুমারী’

সর্বশেষ আপডেট সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০ ইং

আহসান হাবীব,আমারজমিন :
কলকাতার জনপ্রিয় নির্মাতা অরিন্দম শীল নির্মাণ করেছেন ‘মায়াকুমারী’ নামে একটি চলচ্চিত্র। এতে মায়াকুমারীর চরিত্র রূপায়ন করেছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। কাননকুমার ও তার নাতি আহিরের চরিত্রে অভিনয় করেছেন আবির চ্যাটার্জি। আর রজতাভ দত্তকে দেখা যাবে শীতল ভট্টাচার্যের চরিত্রে। চল্লিশের দশকের দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী ছিলেন মায়াকুমারী। ডাকসাইটে এই নায়িকার প্রেমে পড়েছিলেন বিখ্যাত অভিনেতা-পরিচালক কানন কুমার। কিন্তু মায়াকুমারী তখন শীতল ভট্টাচার্যের স্ত্রী। আর এতেই তৈরি হয় যত জটিলতা। জানা যায়, মায়াকুমারী ও কাননকুমারের প্রেমের সম্পর্ক তৎকালীন সমাজ ভালোভাবে গ্রহণ করেনি। কোনো একটি সিনেমায় নায়কের সঙ্গে চুম্বনের দৃশ্যে অভিনয় ও খোলা পিঠের কারণে উপস্থিত দর্শক প্রিমিয়ারে নায়িকাকে থুতু ছিটিয়েছিলেন।মায়াকুমারী ও কানন কুমারের এই কাহিনি নিয়ে ‘মায়াকুমারী’ চলচ্চিত্রটি নির্মান করেছেন অরিন্দম শীল। চলচ্চিত্রটির বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করেছেন—ইন্দ্রাশিস রায়, ফলক রশিদ, অর্ণ মুখার্জি, সৌরসেনী প্রমুখ।

ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে পূজা উপলক্ষে ছবিটি মুক্তি পেতে পারে।তাছাড়া আগামী অক্টোবরে কলকাতায় সিনেমা হল খোলার সম্ভাবনা রয়েছে।
চলচ্চিত্রটির প্রযোজক নীল রতন দত্ত ছবিটির মুক্তি প্রসঙ্গে বলেন, হল খুললে যদি মানুষ হলমুখী হন তবে যত দ্রুত সম্ভব হলেই সিনেমাটি মুক্তি দেব। হাজার হোক, বড় পর্দার কথা মাথায় রেখেই চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করা হয়েছে।

মায়াকুমারীর লুকে ঋতুপর্ণা যথার্থ। কখনো খোলা পিঠে কাঁখে কলসী, আবার কখনো বা সাবেকি গয়নায় অনবদ্য এই নায়িকা। চলচ্চিত্রটির মধ্যে আরো একটি চলচ্চিত্র, মিশে গেছে রিল আর রিয়েল লাইফ। তাই এত চরিত্র আর লুকের ঘনঘটা। আবার অভিনয় ক্যারিয়ারে অনেক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন আবির। কিন্তু এই চলচ্চিত্রের মতো এতটা বেশ বদল কখনো করতে হয়নি তাকে। আর প্রতিটি লুকেই রয়েছে খানিক তারতম্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *